(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({}); (প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। প্রয়োজন আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে), বিএসইসি ভবন (১০ তলা) ॥ ১০২ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫, বাংলাদেশ ॥ +৮৮-০২-৫৫০১১৮৪১, বার্তা বিভাগ: [email protected] পাঁচ বছর পর ২০১৫ সালের আগস্টে ঢাকায় অনুষ্ঠিত সেতুবিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে (আইএবিএসই-জেএসসিই জয়েন্ট কনফারেন্স ইন ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং-থ্রি) সেতুটির বিভিন্ন ধরনের সমস্যা নিয়ে আরেকটি গবেষণাপত্র উপস্থাপন করা হয়। বুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২০ ইং ♢ ৮ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ♢ ৫ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী 2K likes. Thanks সাইফুল আমীন শেয়ার বিজকে বলেন, ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড হুবহু বাংলাদেশে অনুসরণ করা সম্ভব নয়, কারণ বাতাস, তাপমাত্রা, আর্দ্রতাসহ পরিবেশের অন্যান্য উপাদানের ভিন্নতা রয়েছে এ দেশে। ফলে নকশায় কিছুটা ত্রুটি ছিল। তবে ফাটল মেরামতের সময় এক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।, তথ্যমতে, ২০১০ সালের আগস্টে ঢাকায় অনুষ্ঠিত সেতুবিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলনে (আইএবিএসই-জেএসসিই জয়েন্ট কনফারেন্স ইন ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং-টু) বঙ্গবন্ধু সেতুর ফাটলবিষয়ক একটি গবেষণাপত্র উপস্থাপন করা হয়। বুয়েটের পাঁচ অধ্যাপক ড. এএফএম সাইফুল আমীন এবং জাপানের সাইতামা বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরকৌশল ও পরিবেশ প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ওয়োশিআকি ওকুই যৌথভাবে গবেষণাপত্রটি প্রণয়ন করেন। এতে দেখানো হয় বঙ্গবন্ধু সেতুটি নির্মাণে ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড অনুসরণ করায় তাপমাত্রার পার্থক্যে কী ধরনের সমস্যা হচ্ছে।, গবেষণাপত্রটির ‘সুপারস্ট্রাকচার: এফেক্ট অব টেমপারেচার’ অংশে দেশের বিভিন্ন সেতুতে তাপমাত্রার প্রভাব তুলে ধরা হয়। বঙ্গবন্ধু সেতু প্রসঙ্গে ওই অংশে বলা হয়, বঙ্গবন্ধু সেতু উদ্বোধনের আগেই এর কিছু অংশে ফাটল দেখা দেয়। মাঝের স্প্যানের উপরিভাগে এসব ফাটল সৃষ্টি হয়। সময়ের ব্যবধানে এগুলোর আকার বড় হয়েছে ও সংখ্যায় বেড়েছে। দুই বছর বিভিন্ন ঋতুতে সেতুর তাপমাত্রা সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ করে বুয়েট দেখতে পায়, সেতুটির সুপারস্ট্রাকচার বিভিন্ন মৌসুমে বিভিন্ন রকমের তাপমাত্রা সহ্য করে। একই অবস্থা সেতুটির নিচের পৃষ্ঠে।, দিনে ও রাতে বঙ্গবন্ধু সেতু বিপরীতমুখী তাপমাত্রা সহ্য করে থাকে। গ্রীষ্মকালে এর পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। এ সময় নকশার চেয়ে ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি তাপমাত্রা থাকে সেতুটির উপরিভাগে। তবে হঠাৎ বৃষ্টি এলে তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রি পর্যন্ত হ্রাস পায়। তবে সেতুটির নিচের পৃষ্ঠের তাপমাত্রা তখনও অপরিবর্তিত ছিল। ১৯৯৮ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত এর চেয়েও খারাপ পরিস্থিতির শিকার হয় সেতুটি।, এদিকে অতিরিক্ত তাপমাত্রার জন্য বঙ্গবন্ধু সেতুর ফাটল মেরামতের কাজ কয়েক দফা ব্যাহত হয়। ফাটলে লাগানো আঠাও উঠে যায়। এতে বন্ধ রাখা হয় ফাটল মেরামত। পরে সেতুটি মেরামতের সময় নতুন কিছু প্রযুক্তি ব্যবহারের সুপারিশ করে বুয়েট। এর পর সেতুটি মেরামত করা হয়।, অধ্যাপক ড. যমুনা টাঙ্গাইল, Tangail. ইসমাইল আলী: যমুনা নদীর ওপর নির্মিত বঙ্গবন্ধু সেতু খুলে দেওয়া হয় ১৯৯৮ সালের জুনে, যদিও কয়েক বছরের মাথায় সেতুটিতে ফাটল … কাজ শুরুর আগেই তিন দফা ব্যয় বৃদ্ধি . Enjoy the videos and music you love, upload original content, and share it all with friends, family, and the world on YouTube. সাইফুল আমীন বলেন, ফাটল মেরামত কয়েক দফা ব্যর্থ হওয়ার পর নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়। এর পর সেতুটির মেরামত সম্পন্ন করা যায়। এতে সেতুটির তাপ সহ্য করার ক্ষমতাও বেড়েছে।, সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সেতুতে ফাটলের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধির অন্যতম কারণ ছিল মিটারগেজ নকশা প্রণয়ন করলেও পরবর্তীকালে ব্রডগেজ রেলপথ সংযোজন। এক্ষেত্রে সেতুটির একদিকে এঙ্গেল বসিয়ে ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ করা হয়। ব্রডগেজ ট্রেনের এক্সেল লোড মিটারগেজের তুলনায় অনেক বেশি। এতে মূল সেতুতে চাপ বেশি পড়ায় ফাটল দ্রুত বড় হয়।, বর্তমানে বঙ্গবন্ধু সেতুতে সর্বোচ্চ ২০ কিলোমিটার গতিতে ট্রেন চলাচল করে। এতে রাজধানীর সঙ্গে উত্তর-পশ্চিম এবং দক্ষিণ অঞ্চলের মধ্যে যাতায়াত করা ট্রেনগুলোর সেতুটি পাড়ি দিতে প্রায় আধা ঘণ্টা লেগে যায়। এছাড়া পণ্যবাহী ট্রেন চলাচলও বন্ধ সেতুটি দিয়ে। এতে আন্তর্জাতিক রেল করিডোর তথা ট্রান্স-এশিয়ান রেল রুটে বাধা হয়ে উঠেছে সেতুটি।, এর স্ত্রীর অন্তরঙ্গ ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দিলেন স্বামী! পূর্ব ও পশ্চিম এর মধ্যে প্রথম যোগাযোগের চিন্তা করা হয়েছিল ১৯৪৯ সালে । ১৯৫৪ সালে এই চিন্তা দানা বাঁধে … মেয়েটিকে ধুমপান করতে দেখে ঝাঁপিয়ে পড়ল 'বীর বাঙালি', 'অন্যের ঘরণী হয়েও পরকীয়ার সর্বনাশা ফাঁদে পা দিয়েছি', নতুন বছরে দু'জন প্রধানমন্ত্রী পাচ্ছি, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান: দুদু, গাড়িচাপায় হত্যাচেষ্টা নুরকে, কৌশলে প্রাণে বেঁচে গিয়ে থানায়, পাকিস্তানকে ক্ষমা করতে পারব না : রাষ্ট্রদূতকে প্রধানমন্ত্রী. বঙ্গবন্ধু যমুনা রেল সেতু প্রকল্প . বুড়িগঙ্গা সেতুতে প্রত্যয়ের ধাক্কা; ফাটলের শঙ্কায় যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ. তুরস্কের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার পরিকল্পনা করছে ইইউ. যমুনা নদীর ওপর দুটি রেলসেতু নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয়ক সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। সম্পাদকীয়: [email protected] উদ্ধারকারী জাহাজের ধাক্কায় বুড়িগঙ্গা সেতুতে ফাটল, যান চলাচল বন্ধ Reporter Name ঢাকার ডাক ডেস্ক : যমুনা নদীর ওপর দীর্ঘ প্রতীক্ষিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেল সেতুর নির্মাণ শুরু … ঘেঁষে বসে তরুণীর স্পর্শকাতর স্থানে হাত, পা ধরে মাফ চাইত হলো! অনলাইন ডেস্ক : যমুনা নদীর ওপর দীর্ঘ প্রতীক্ষিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেল সেতুর নির্মাণ শুরু … বাড়িতে আসতে দেরি করায় স্বামীর পুরুষাঙ্গ বটি দিয়ে কাটলেন স্ত্রী! মফস্বল: [email protected], ইতিবাচক প্রবণতায় শেষ হলো সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন, বন্ড ছাড়ার অনুমোদন পেল ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, মানবাধিকার সুরক্ষায় ঘুরে দাঁড়াব আমরা সবাই, শিশুকে অনলাইনে নিরাপদ রাখতে প্রস্তুতি প্রয়োজন, মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি দিয়েই চার বছর পার রাবি ছাত্রলীগের, ইবিতে স্বাক্ষর বিড়ম্বনায় ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা, ১৯ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা, যবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের ৪০ শতাংশ সেমিস্টার ফি মওকুফ, এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পর ৫ বছর বাণিজ্য সুবিধা চায় বাংলাদেশ, ইসলামী ব্যাংকের শরিয়াহ্ সুপারভাইজরি কমিটির সভা অনুষ্ঠিত, ব্রেক্সিট-পরবর্তী বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে আলোচনায় জনসন-উরজুলা, অস্ট্রেলীয় ওয়াইনের ওপর ফের শুল্কারোপ চীনের, করোনায় মারা গেলেন সংগীত প্রযোজক সেলিম খান, কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে পলো দিয়ে মাছ ধরার ঐতিহ্য, আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়েছে লক্ষ্মীপুরে, মুনাফার আশা কৃষকের, জানুয়ারির শুরুতেই ভ্যাকসিন পাবে বাংলাদেশ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী, অশ্রেণিকৃত ঋণে অতিরিক্ত ১% প্রভিশন রাখার নির্দেশ, ভারত থেকে আরও ৫০ হাজার টন চাল আমদানিতে সায়, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পরিচালক নির্বাচিত হলেন সিদ্দিকুর রহমান, নারীরা না এগোলে সমাজ চলবে খুঁড়িয়ে: প্রধানমন্ত্রী, চাঙা পুঁজিবাজারে ব্যবসায় ফিরছে ব্রোকারেজ হাউস, এটা দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার সময় নয়: বিআইবিএম, ঊর্ধ্বমুখী বাজারে চাহিদা বেশি ছিল বিমা খাতের, উপনির্বাচনে আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে তিনজনকে জরিমানা. প্রতারণার শিকার হয়ে সর্বস্বান্ত রাখি সাওয়ান্ত! পিরামিডের সামনে 'আপত্তিকর' ফটোশুট, মডেল গ্রেপ্তার, দুই পরকীয়া প্রেমিকের ফাঁদে পড়ে যান রোজিনা, 'আমি পিরামিডের ঐতিহ্য তুলে ধরতে চেয়েছি, অথচ আমাকে গ্রেপ্তার করা হলো'. Its only page of your choice, decision and conscious opinion platform. চিত্রনায়ক নাঈম ক্ষেতে খামারে-কৃষিকাজে ব্যস্ত, নাতির সঙ্গে নয়, ৮৫ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে হয়েছে সেই মেয়ের, 'আমার স্ত্রী হিন্দু ধর্মে বিশ্বাসী হয়ে উঠছে', পুরুষত্ব নিয়ে সন্দেহ স্ত্রীর, সুস্থ প্রমাণে যা করলেন স্বামী, মালয়েশিয়ায় স্ত্রীসহ আটক হলেন সেই 'চিটার বাবুল', নারী সাজিয়ে ব্ল্যাকমেইল, ছাত্রদের দিয়ে বিক্ষোভ! প্রাণের জয়পুরহাট সকলের কাছে তুলে ধরার উদ্দেশ্য নিয়ে Joypurhat Helpline গ্রুপের যাত্রা শুরু। … Joypurhat Helpline has 17,512 members. কি-ওয়ার্ডস বিশ্ব, ভাইরাল ভিডিও, যমুনা সেতু, দক্ষিণ, সেতু আপনার মতামত জানান শিশুকে ধর্ষণচেষ্টা, ব্যর্থ হয়ে ভাই-বোনকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা! বাংলাদেশে আইইএলটিএস’র বর্তমান পরিস্থিতি এবং সম্ভাবনা নিয়ে উইংস লার্নিং সেন্টারের ওয়েবিনার, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙায় টরন্টো প্রবাসী নাগরিক ও লেখকদের ক্ষোভ, স্বপ্নের সেতু এখন বাস্তব এবং সব চ্যালেঞ্জের অবসান, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকায় পদ্মা সেতু দৃশ্যমান, কুড়িল ফ্লাইওভার রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পেল সেতু মন্ত্রণালয়, ‘ভাস্কর্যের বিরোধিতা করে জনগণের হৃদয় থেকে বঙ্গবন্ধুকে দূরে রাখা যাবে না’, গ্রামীণফোনের জন্য ৫০০ টাওয়ার স্থাপন করবে ইডটকো, কাল বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী, একাধিক বিয়ে, গৃহকর্মী নির্যাতন : যেভাবে ধ্বংস হলো এক অসাধারণ প্রতিভা. পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে যমুনা নদীর ওপর পৃথক রেল সেতু নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদন করে সরকার। সমীক্ষা ও বিস্তারিত নকশা প্রণয়নশেষে সম্প্রতি এর ঠিকাদার নিয়োগ প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়েছে। দ্রুতই এর নির্মাণকাজ শুরু করা হবে। আর ২০২৪ সালে সেতুটি উদ্বোধনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।. সৃজনের পথে উন্নত স্বদেশ. যমুনা নদীর ওপর দীর্ঘ প্রতীক্ষিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেল সেতুর নির্মাণ শুরু হচ্ছে আজ রবিবার (২৯ নভেম্বর)। কেএম আমানত, এএফএম সাইফুল আমিন, টিআর হোসেন, এ কবির ও এমএ রউফ যৌথভাবে সেতুটির ফাটলের কারণ তুলে আনেন।, এতে বলা হয়, বঙ্গবন্ধু সেতু নির্মাণ শেষ হওয়ার আগেই এতে ফাটল দেখা দেয়। সেতুটি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুন্দাই ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ১৯৯৭ ও পরামর্শক প্রতিষ্ঠান আরপিটি-নাডিকো-বিসিএলের ১৯৯৯ সালের প্রতিবেদনে ফাটলের তথ্য উল্লেখ রয়েছে। এছাড়া ২০০৬ সালে সেতুটি পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা মার্গা নেট ওয়ান লিমিটেডের প্রতিবেদনেও ফাটলের তথ্য উল্লেখ করা হয়।, বুয়েটের প্রতিনিধিদলের পর্যালোচনায় দেখা যায়, ১৯৯৭ ও ১৯৯৯ সালের ফাটলগুলো পরবর্তীকালে বড় আকার ধারণ করেছে। ফাটলের মূল কারণ হলো সেতুটির নকশা প্রণয়নে ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড ৫৪০০ অনুসরণ করা হয়েছে। এতে যে তাপমাত্রা ও রডের সংকোচন-প্রসারণ ধরা হয়, তা ছিল অপর্যাপ্ত। ফলে অত্যধিক তাপমাত্রা ও ভারী যানবাহন চলাচল করায় বঙ্গবন্ধু সেতুতে ফাটল বেড়েছে ও এগুলোর আকার বড় হয়েছে।, এর হেফাজত নেতা মাদরাসা থেকে বহিষ্কার, মামুনুলের ওয়াজ মাহফিল বাতিল হলো সিরাজগঞ্জে, প্রাণিসম্পদ ও ডেইরি উন্নয়ন প্রকল্পে দুর্নীতি, তদন্ত করবে সংসদীয় কমিটি, ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় জামিন পাননি সাইফুল-নাজমুল, ৪০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা চান তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারীরা, সরকারের তীব্র সমালোচনা করে সাত সংগঠনের বিবৃতি, সন্তানদের না দিয়ে স্ত্রীর নামে সম্পত্তি লিখে দেওয়া, সুপ্রিম কোর্টে লাখো ভোট বাতিলের আবেদন ট্রাম্পের, আফগানিস্তানে নারী সাংবাদিককে গুলি করে হত্যা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা শুরু ২৬ ডিসেম্বর, হু'র সিয়েরো ইডি পদে বাংলাদেশের প্রার্থীতায় ভারতের সমর্থন, শেষ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা নেবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, রোহিঙ্গা ফেরাতে দক্ষিণ কোরিয়ার সমর্থন চাইলেন প্রধানমন্ত্রী, ১৭ ডিসেম্বর চিলাহাটি-হলদীবাড়ি ট্রেন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী, সরকারকে অবশ্যই জনগণের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে : ফখরুল, বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে জন্ম ও বিয়ে নিবন্ধন ডিজিটাল করার সুপারিশ, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধসহ তিন ইস্যুতে তৃণমূলে বিশেষ অবদান রাখছে বিএপিপিডি, নতুন প্রজন্মের সুরক্ষায় স্কুল পর্যায়ে যৌন প্রজনন শিক্ষার প্রসার জরুরি, মসজিদে মুসল্লিদের মাস্ক পরা নিশ্চিতের আহবান ইসলামিক ফাউন্ডেশনের, ‘২০৪১ সালের আগেই বাংলাদেশ বাল্যবিয়ে মুক্ত হবে’, আওয়ামী লীগকে আরো পরিচ্ছন্ন, স্মার্ট করতে চাই : সেতুমন্ত্রী, জানুয়ারির প্রথম দিকেই টিকা পেয়ে যাব : স্বাস্থ্যমন্ত্রী, ‘মাদরাসায় জাতীয় সংগীত গাওয়া ও পতাকা উত্তোলন করতে হবে’, ৪০% মহার্ঘভাতাসহ স্থায়ী বেতন কমিশনের দাবি, ‘ভাস্কর্য ভাঙার দায় চাপিয়ে হেফাজতে ইসলামকে ঘায়েল করার চেষ্টা হচ্ছে’, ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরো ৩৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৮৬১, বিশ্ববাসীকে আমরা দেখিয়ে দিয়েছি : সেতুমন্ত্রী, সরকারি ক্রয়ে এসএমইদের জন্য কোটা নির্ধারণের চেষ্টা চলছে: শিল্পমন্ত্রী, ‘মহান মুক্তিযুদ্ধে আনোয়ার উল আলম শহীদের অবদান অবিস্মরণীয়’. শুক্রবার । ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ১১ ডিসেম্বর ২০২০। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪২, ২৯ নভেম্বর, ২০২০ ০৮:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে, যমুনা নদীর ওপর দীর্ঘ প্রতীক্ষিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেল সেতুর নির্মাণ শুরু হচ্ছে আজ রবিবার (২৯ নভেম্বর)।, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই রেল সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। বঙ্গবন্ধু সেতু চালুর পর থেকে ২২ বছর ধরে সেতু দিয়ে নানা সীমাবদ্ধতার মধ্য দিয়ে রেল পারাপার হয়ে আসছে। এবার বঙ্গবন্ধু সেতুর ৩০০ মিটার উজানে নির্মিত হচ্ছে ডাবল লেনের ৪.৮ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের রেল সেতু।, ১৯৯৮ সালে বঙ্গবন্ধু সেতু চালুর মধ্য দিয়ে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে উত্তর ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের রেল যোগাযোগ চালু হয়। প্রথমে ব্রডগেজ ও মিটারগেজের চারটি ট্রেন দৈনিক আটবার পারাপারের পরিকল্পনা থাকলেও যাত্রী চাহিদা বাড়তে থাকায় সেতুর ওপর দিয়ে চলাচলকারী ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানো হয়। ২০০৮ সালে বঙ্গবন্ধু সেতুতে ফাটল দেখা দেওয়ায় কমিয়ে দেওয়া হয় সেতুর ওপরে চলাচলকারী ট্রেনের গতিসীমা।, বর্তমানে ৩৮টি ট্রেন নিয়মিত স্বল্প গতিতে ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হলেও সময় অপচয়ের পাশাপাশি ঘটছে শিডিউল বিপর্যয়; বাড়ছে যাত্রী ভোগান্তি। ট্রেন যোগাযোগ ব্যবস্থা নির্বিঘ্ন করতে বঙ্গবন্ধু সেতুর ৩০০ মিটার উজানে নির্মাণ করা হচ্ছে দেশের সর্ববৃহৎ ডেডিকেডেট রেল সেতু। এই সেতুর ওপর দিয়ে ১০০ কিলোমিটার বেগে দুটি ট্রেন একসঙ্গে চলাচল করতে পারবে। উন্মুক্ত হবে সব ধরনের পণ্যবাহী ট্রেন চলাচলের। ফলে সময় সাশ্রয় হওয়ার পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন এবং ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে।, রেলমন্ত্রী মো. সাধারণত ৫০ বা ১০০ বছরের চাহিদার কথা মাথায় রেখে গ্রহণ করা হয় পরিকল্পনা। আর বড় অবকাঠামোগত প্রকল্পের পেছনে থাকে দীর্ঘমেয়াদি সুফল পাওয়ার আশা। তবে বাংলাদেশে এ চিত্র অনেকটাই ভিন্ন। কোনো প্রকল্প বাস্তবায়ন শেষেই ধরা পড়ে ত্রুটি। সেগুলো সংশোধনের জন্য আবার নেওয়া হয় প্রকল্প। এতে অপচয় হয় সম্পদ ও সময়ের। এ ধরনের ত্রুটিপূর্ণ কয়েকটি অবকাঠামো নিয়ে অনুসন্ধান করেছে শেয়ার বিজ। আজ ছাপা হচ্ছে দ্বিতীয় পর্ব, ইসমাইল আলী: যমুনা নদীর ওপর নির্মিত বঙ্গবন্ধু সেতু খুলে দেওয়া হয় ১৯৯৮ সালের জুনে, যদিও কয়েক বছরের মাথায় সেতুটিতে ফাটল ধরা পড়ে। মিটারগেজের নকশা করা হলেও পরে সেতুটিতে ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ করা হয়। এতে সেতুতে চাপ বাড়ায় কমিয়ে দেওয়া হয় ট্রেনের গতি। এছাড়া ধরা পড়ে সেতুটির ত্রুটিপূর্ণ নকশার বিষয়টি। এতে দুই দশক না পেরুতেই যমুনা নদীর ওপর পৃথক রেল সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে।, তথ্যমতে, বঙ্গবন্ধু সেতু নির্মাণে ব্যয় হয়েছিল তিন হাজার ৭৪৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা। পৃথক রেল সেতু নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে প্রায় ১২ হাজার ৯৫০ কোটি ৬০ লাখ টাকা। অর্থাৎ বঙ্গবন্ধু সেতুর প্রায় সাড়ে তিনগুণ ব্যয়ে রেল সেতুটি নির্মাণ করা হচ্ছে।, বঙ্গবন্ধু সেতুতে ফাটলের কারণ অনুসন্ধানে একাধিক গবেষণা করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপকরা। এ বিষয়ে একাধিক জার্নালও প্রকাশ করেছেন বুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের গবেষকরা।, গবেষণাগুলোয় দেখা যায়, বঙ্গবন্ধু সেতুর নকশা প্রণয়নে ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ড (বিএস) ৫৪০০ অনুসরণ করা হয়। সেতু নির্মাণে ১৯৭৮ সালে প্রণীত এ ম্যানুয়াল অনুযায়ী, বাতাসে তাপমাত্রা ২৪-৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকলে সেতুর উপরিকাঠামোর (সুপারস্ট্রাকচার) তাপমাত্রা ২৭ থেকে ৩৭ ডিগ্রির মধ্যে ওঠানামা করবে। এরূপ বিবেচনায় নকশা প্রণয়ন করা হয় বঙ্গবন্ধু সেতুর। যদিও সেতুটির প্রকৃত অবস্থা ভিন্ন।, বুয়েটের গবেষণায় দেখা যায়, গ্রীষ্মকালে সেতুটির সুপারস্ট্রাকচারের তাপমাত্রা ১৯ থেকে ৪৫ ডিগ্রি পর্যন্ত ওঠানামা করে। আর শীতে এ তাপমাত্রা ১৩ থেকে ৩২ ডিগ্রির মধ্যে থাকে। আবার গ্রীষ্মে হঠাৎ শিলাবৃষ্টি হলে ঘণ্টার ব্যবধানেই তাপমাত্রা ১০-১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমে যায়। তাপমাত্রার এ ধরনের পার্থক্য সেতুটির নকশা প্রণয়নের সময় বিবেচনা করা হয়নি। এতে সেতুটির ডেক সø্যাবে ব্যবহার করা রডের সংকোচন ও প্রসারণ ব্যাহত হয়। ফলে নির্মাণ শেষ হওয়ার আগে সেতুতে ফাটল দেখা দেয়, পরে যা বড় হয়েছে। এছাড়া অত্যধিক তাপমাত্রার কারণে সেতুটির মেরামত কাজও একাধিকবার ব্যাহত হয়।, জানতে চাইলে গবেষণা দলের অন্যতম সদস্য বুয়েটের অধ্যাপক ড. নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, জাপান ও বাংলাদেশ সরকারে যৌথ অর্থায়নে ১৬ হাজার ৭৮০ কোটি টাকা ব্যয়ে এই রেল সেতুটি নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে জাইকা। ২০২৪ সালের আগস্ট মাসের মধ্যে কাজ সমাপ্ত হবে। এই সেতু দিয়ে ১০০ কিলোমিটার বেগে একই সঙ্গে দুটি ট্রেন চলাচল করতে পারবে। পাশাপাশি সব ধরনের মালবাহী ট্রেন চলাচল করতে পারবে।, সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন, ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্রধান কার্যালয় : প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ ও সুপ্রভাত মিডিয়া লিমিটেড ৪ সিডিএ বাণিজ্যিক এলাকা, মোমিন রোড, চট্টগ্রাম-৪০০০ ও কালিবালা দ্বিতীয় বাইপাস রোড, বগুড়া থেকে মুদ্রিত। পিএবিএক্স : ০৯৬১২১২০০০০, ৮৪৩২৩৭২-৭৫, বার্তা বিভাগ ফ্যাক্স : ৮৪৩২৩৬৮-৬৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮৪৩২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮৪৩২০৪৭, সার্কুলেশন : ৮৪৩২৩৭৬। E-mail : [email protected]. নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০ June 30, 2020 জাতীয়
When Did The Battle Of Hastings End, Buy Design Essentials Canada, Puffed Chicken Feet For Dogs, Hotpoint Oven Er07, Barsmith Old Fashioned Mix, El Señor De Los Cielos Real, In Vino Veritas In Aqua Sanitas перевод,